মঙ্গলবার, ৭ জুলাই ২০২০, ২৩ আষাঢ় ১৪২৭ 
Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home / খুলনা বিভাগ / খুলনায় আর্সেনিকোসিসে আক্রান্ত ৫৮৯

খুলনায় আর্সেনিকোসিসে আক্রান্ত ৫৮৯

সাতক্ষীরা ২৪ নিউজ ডেস্ক:

জেলার নয়টি প্রত্যন্ত অঞ্চলের ৪২টি ইউনিয়নে ৫৮৯ জন আর্সেনিকোসিসে আক্রান্ত হয়েছেন। ২০০৩ সালে জেলায় রোগীর সংখ্যা ছিল ৪৮০জন। ২০১১ সালে রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৫৩৮ জনে। বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৮৯ জন। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সূত্র জানান, অপরিকল্পিতভাবে পানি উত্তোলনের ফলে ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর নিচে নেমে যাচ্ছে। আর সে স্থানটি দখল করছে বাতাস। ভূ-গর্ভস্থ শিলার স্তর ও বাতাসের সংস্পর্শে এসে জারন-বিজারন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আর্সেনিক পানিতে দ্রবীভুত হয়ে যাচ্ছে। খুলনার ৫৯ হাজার ৮২১টি অগভীর নলকূপের মধ্যে ২৫ হাজার ৬৯৩টি নলকূলের পানিতে আর্সেনিকের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সূত্র মতে, আর্সেনিক কবলিত ইউনিয়নগুলো হচ্ছে- ডুমুরিয়া উপজেলার মাগুরঘোনা, রংপুর, পাইকগাছা উপজেলার হরিঢালি, কপিলমুনি, লতা, দেলুটি, শোলাদানা, লস্কর, গদাইপুর, রাঢ়ুলি, চাঁদখালি, কয়রা উপজেলার আমাদি, বাগালি, মহারাজপুর, দাকোপ উপজেলার চালনা, দাকোপ, তিলডাঙ্গা, কামারখোলা, বটিয়াঘাটা উপজেলার জলমা, ভান্ডারকোর্ট, বালিয়াডাঙ্গা, আমিরপুর, রূপসা উপজেলার আইজগাতি, শ্রীফলতলা, নৈহাটি, টিএস বাহিরদিয়া, ঘাটভোগ, তেরখাদা উপজেলার ছাগলাদহ, ছাচিয়াদহ, আজগড়া, মধুপুর, তেরখাদা, বারাসাত, দিঘলিয়া উপজেলার যোগিপোল, সেনহাটি, দিঘলিয়া, গাজীরহাট ও বারাকপুর। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সিনিয়র ক্যামিষ্ট জানান, ডুমুরিয়া, তেরখাদা, রূপসা, দিঘলিয়া ও পাইকগাছা উপজেলায় অগভীর নলকূপে আর্সেনিকে আক্রান্তের পরিমাণ বেশি। জেলা স্বাস্থ্য তত্বাবধায়ক জয়ন্ত নাথ চক্রবর্তী জানান, আর্সেনিকের প্রকোপ অনেকটা কমেছে। নতুন কোনো রোগী নেই। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ইউনিয়ন কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। উল্লেখ্য, ২০০৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত দিঘলিয়ায় আর্সেনিকোসিসে আক্রান্ত হয়ে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

error: Content is protected !!