বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬ 
Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home / আন্তর্জাতিক / সর্বকালের সেরা দশে সাকিব

সর্বকালের সেরা দশে সাকিব

আসিফ ইকবাল :

ওভাল, কার্ডিফ, ওল্ড ট্রাফোর্ড হয়ে লর্ডস- সর্বত্রই সাকিব আল হাসান। সর্বত্রই সাকিব পরশে উজ্জ্বল। সাকিব খেলছেন, গোটা দলকে উৎসব-উচ্ছ্বাসে মাতাচ্ছেন। বিশ্বকাপ এখন সাকিবে মুগ্ধ। দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার এখন বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ‘সুপার ম্যান’। ক্রিকেট মহাযজ্ঞের ‘পোস্টার বয়’। বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় ‘বিজ্ঞাপন’।

তিনি শুধু বিশ্বকাপকে অন্য এক উচ্চতায় নেননি, হিমালয়সম উচ্চতায় ঠাঁই দিয়েছেন বাংলাদেশকে। নতুন পরিচয়ে পরিচিত করেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটকে। ৬৪ রানের ইনিংস খেলে সাজঘরে ফেরার পথে লিখেছেন নতুন এক রেকর্ড। বাংলাদেশের প্রথম ও একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে বিশ্বকাপের এক আসরে সর্বাধিক ৬০৬ রান ও সব মিলিয়ে বিশ্বকাপে হাজার রানের মাইলফলক গড়েছেন। বিশ্বকাপে এখন তার রান ২৯ ম্যাচে ১১৪৬। সবচেয়ে বেশি রান ভারতীয় ক্রিকেটের জীবন্ত কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারের, ২২৭৮।

সাকিবের জার্সি নম্বর ৭৫। ২ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওভালে ৭৫ রান এবং ৫০ রানে ১ উইকেট নিয়ে অবিশ্বাস্য জয় উপহার দেন প্রিয় বাংলাদেশকে। সেই শুরু, গতকাল ক্রিকেটের মক্কা লর্ডসে থেমেছেন পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬৪ রানের নান্দনিক ইনিংস খেলে। এর মাঝে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের ব্যাট থেকে বেরিয়েছে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৬৪, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১২১, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১২৪*, অস্ট্রেলিয়া ৪১, আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৬১ ও ২৮ রানে ৫ উইকেট, ভারতের বিপক্ষে ৬৬ রান করেন। সব মিলিয়ে ৮ ম্যাচের ৮ ইনিংসে রান করেছেন ৬০৬। চলতি বিশ্বকাপে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ছয়শোর্ধ্ব রান করেছেন। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের গড় ৮৫.৫৭, স্ট্রাইক রেট ৯৬.০৭ এবং সেঞ্চুরি ২টি ও হাফসেঞ্চুরি ৫টি।

এক আসরে তার চেয়ে বেশি হাফসেঞ্চুরি রয়েছে শুধু টেন্ডুলকারের ৬টি। গোটা বিশ্বকাপে চাপকে চোখ রাঙিয়ে, ভয়কে জয় করে, গতি, বাউন্স ও সুইংকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দুরন্ত ব্যাটিং করে বিশ্বকাপকে প্রজাপতির রঙে রাঙিয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। আইসিসি এখনো বিশ্বকাপের ‘মোস্ট ভ্যালুয়েবল প্লেয়ার’ (এমভিপি) ক্রিকেটারের নাম ঘোষণা করেনি। তবে ৬০৬ রান ও ১১ উইকেট নিয়ে সেরা খেলোয়াড়ের তালিকায় সবার ওপরে সাকিব। তিনি বিশ্বসেরা হবেন কিনা, সময়সাপেক্ষ। কিন্তু যে কীর্তি গড়েছেন, তাতে সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডারের তালিকায় স্যার ইয়ান বোথাম, ইমরান খান, কপিল দেব, স্যার রিচার্ড হ্যাডলি, জ্যাক ক্যালিসদের চেয়ে পিছিয়ে নন, বরং ওপরেই থাকবেন। ১৯৭৫ থেকে ২০১৯-১২ বিশ্বকাপে একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে ৫০০ রান ও ১০-এর ওপরে উইকেট নিয়েছেন সাকিব।

ঐতিহাসিক লর্ডসে গতকাল ৬৪ রানের ইনিংস খেলে এক বিশ্বকাপে সর্বাধিক রান সংগ্রাহকের তালিকায় সেরা দশে জায়গা করে নিয়েছেন। ২৯ ম্যাচে ৪৫.৮৪ গড়ে তার রান ১১৪৬। তার চেয়ে ওপরে জ্যাক ক্যালিস (১১৪৮), সনত জয়সুরিয়া (১১৬৫), ক্রিস গেইল (১১৮৬), এ বি ডি ভিলিয়ার্স (১২০৭), ব্রায়ান লারা (১২২৫), কুমার সাঙ্গাকারা (১৫৩২), রিকি পন্টিং (১৭৪৩) ও টেন্ডুলকার (২২৭৮)। কাল আরও একটি রেকর্ড গড়েছেন ‘রেকর্ড বয়’ সাকিব। ৩ নম্বর বা তার পরের পজিশনে ব্যাটিং করে এখন সবচেয়ে বেশি রানের মালিক তিনি। ৮ ইনিংসে তার ৬০৬। আগের রেকর্ডটি ছিল শ্রীলঙ্কার মাহেলা জয়াবর্ধনের, ২০০৭ বিশ্বকাপে ১১ ম্যাচে ৫৪৮ রান করেছিলেন লঙ্কান কিংবদন্তি।

বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল না খেলতে পারলেও সাকিব যে পারফরম্যান্সের দ্যুতি ছড়িয়েছেন, তাতে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন ‘সুপার ম্যান’ সাকিব আল হাসান।

error: Content is protected !!